আধুনিক শিক্ষার আগমন , মোদীর জামানায় পাল্টে যাচ্ছে 34 বছরের পুরোনো শিক্ষা নীতি !  

0

নুতন শিক্ষা নীতি :-

5+3+3+4

5- প্রাক-প্রাথমিক ও প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি

3- তৃতীয় চতুর্থ পঞ্চম

3- ষষ্ঠ সপ্তম অষ্টম

4- নবম দশম একাদশ দ্বাদশ

 মাল্টিপল এনট্রি অ্যান্ড এক্সিট সিস্টেম চালু করা হচ্ছে। এর মানে হল, পড়াশোনার মাঝে পড়ুয়ারা কিছু দিনের জন্য ছুটি নিতে পারবেন। কেউ কোনও কারণে মাঝপথে পড়া ছেড়ে দিলে পরে আবার যেখানে ছেড়ে গেছেন সেখান থেকেই পাঠ শুরু করতে পারবেন। উচ্চশিক্ষা সচিব যা জানিয়েছেন তাতে নতুন শিক্ষা নীতিতে উচ্চশিক্ষায় কেউ প্রথম এক বছর সম্পূর্ণ করলে সার্টিফিকেট কোর্স, দু’বছরে ডিপ্লোমা এবং চার বছরে ডিগ্রি দেওয়া হবে। 

 কিছু মানুষ মিডিয়া বলছে এমফিল উঠে যাচ্ছে আসল সত্যতা জানুন  “বদল মানে পাল্টে যাওয়া উঠে যাওয়া নয়”

স্নাতকোত্তর স্তরেও এসেছে বদল। নতুন নীতিতে কেউ গবেষণা করতে চাইলে চার বছরের ডিগ্রি কোর্স করতে পারেন। তিন বছর স্নাতকস্তর এবং এক বছর স্নাতকোত্তর পড়ার পরেই চাইলে পিএইচডি করা যাবে। এমএ শেষ করার চাপ থাকবে না। আবার এম ফিল করার প্রয়োজনও পড়বে না। 

 অনেকে বলছে মাধ্যমিক উঠে যাচ্ছে, উচ্চমাধ্যমিক উঠে যাচ্ছে, এমফিল উঠে যাচ্ছে। 

বদল মানে উঠে যাওয়া নয় পাল্টে যাওয়া। আর বদল যদি না হয় তাহলে ব্রহ্মচর্য গাহস্থ্য  বানপ্রস্থ সন্ন্যাস  থেকে যেত এতদিন।

: এবার ছাত্রের হাতেই থাকছে নিজের ভবিষ্যৎ থাকছে না কোন লক ইন পিরিয়ড 

স্নাতক স্তরে অনার্স কোর্স ৪ বছর পর্যন্ত হতে পারে।। কোর্স শুরুর ১২ মাসের মধ্যে পড়াশোনা ছেড়ে দিলে পড়ুয়া পাবেন ভোকেশনাল কোর্সের সার্টিফিকেট। 

দুবছর বা ২৪ মাস পর ছাড়লে ফিলবে ডিপ্লোমার সার্টিফিকেট। 

আর চার বছরের কোর্স করলে পাওয়া যাবে ডিগ্রি কোর্সের সার্টিফিকেট। ফলে চাকরির ক্ষেত্রে সুবিধা হবে।