১০০ ফুট ওপর থেকে পড়েও অবিশ্বাস্যভাবে বেঁচে গেছে ঘুমন্ত অবস্থায় হাঁটা পাঁচ বছরের এক শিশু।থাইল্যান্ডের একটি হোটেলের ১২ তলা থেকে পড়ে গিয়ে কোনকিছুর সঙ্গে আটকে যাওয়ায় শিশুটি বেঁচে যায়।

ডেইলি মেইল জানায়, শিশুটির বাবা তাকে সাথে নিয়ে থাইল্যান্ডের পাতায়ায় একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যান। তারা সেখানে একটি হোটেলে ওঠেন। সেখানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

সিসিটিভির ফুটেজে দেখা গেছে, রোববার (১২ মে) সকালে হোটেলের ১৩ তলার একটি কক্ষ থেকে শিশুটি বের হয়। এসময় সে সম্ভবত ঘুমাচ্ছিল। ঘুমের মধ্যেই হেঁটে শিশুটি কক্ষের বাইরে গিয়ে আবার ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করে। কিন্তু দরজা সেসময় ভেতর থেকে আটকে যায়। এরপর সে আরেকটি কক্ষে ঢোকার চেষ্টা করে।

সেই কক্ষে ঢুকতে না পেরে সে ১২ তলায় চলে যায়। বরান্দা দিয়ে হেঁটে সে একটি কক্ষে ঢোকার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। এরপর সে খোলা বারান্দার ছোট দেয়াল বেয়ে নিচে নামার চেষ্টা করে। পায়ের নিচে কোনকিছুর অস্তিত্ব না পেয়ে বারান্দার রেলিং আকরে ধরে। কিন্তু কিছুক্ষণ থাকার পর সে নিচে পড়ে যায়।

এসময় ১০০ ফুট নিচে কোনকিছুর সঙ্গে সে আটকে যায়। শব্দ শুনে হোটেলের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাত, পাপ ভেঙে যাওয়ায় শিশুটি মারাত্মভাবে আহত হয় এবং তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়।

পরে নিরাপত্তাকর্মীদের মাধ্যমে খবর পেয়ে মেয়ের কাছে যান তার বাবা। তিনি বলেন, আমি জানি না কখন সে কক্ষের বাইরে গেছে। সম্ভবত সে ঘুমের মধ্যে হেঁটে হেঁটে বাইরে গেছে।

এ বিষয়ে পাতায়া পুলিশ প্রধান বলেছেন, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে মনে হচ্ছে শিশুটির কৌতুহল এবং ভয়হীনতার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।শিশুদের বিষয়ে বাবা মায়ের আর সতর্ক হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।