এক সপ্তাহ খাওয়ার জন্য ছটফট করে মারা গেল এই খুদে মেয়ে !

0

সমাচার ডেস্কঃ- এক সপ্তাহ ধরে খাবারের জন্য ছটফট করে শেষ পর্যন্ত মারা গেল ৫ বছরের খুদে মেয়ে । নোটবন্দির সময় অনাহারে মারা যায় ছেলে । এবার লকডাউনে  রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনাহারে মারা গেলে মেয়ে । লকডাউনের ফলে কোনো কাজ জোগাড় না হওয়ায় মেয়েটাকে কিচ্ছুই খেতে দিতে পারলাম না । এই কথা নিয়ে শূন্য বুকে কাঁদতে কাঁদতে ভেঙে পড়েছে অসহায় মা।

 

 অসহায় মায়ের হাহাকারের ঘটনা উত্তরপ্রদেশের আগ্রার বারোলি’র আহির ব্লক পরিবার নিয়ে বাস শিলা দেবীর। শুক্রবার শিলার ৫ বছরের মেয়ে সোনিয়া মারা যায় অনাহারে । এই ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসে যোগী রাজ্য প্রশাসন । এই ঘটনার তদন্তে দাবি করছে প্রশাসন । জেলাশাসকের দাবি , শিশুটির মৃত্যু কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে ! , প্রশাসনকে না জানিয়ে মেয়েকে কবর দেওয়া হয়েছে বলে দাবি প্রশাসনের । শিশুটির মৃত্যু আসল কারণ জানা যায়নি । মেয়েকে ময়না তদন্তে পাঠানো হয়নি ‌।

 

দীর্ঘ লকডাউনের জেরে রোজগার হীন । এখনো রোজগার জন্য কাজ পাচ্ছে না । এমন সময়ে বেশীরভাগ দিনই অনাহারে বা অর্ধাহারে দিন কাটে যাচ্ছে । একমাসে ধরে এই অবস্থা আরও সঙ্গীন হয় ওঠে । এক সপ্তাহ ধরে না খেতে পাওয়ায় খুদে মেয়ের শরীর দুর্বল হয়ে যায় । অপুষ্টিতে ভুগছিল সে ।

 

মা শিলা জানিয়েছেন, ‘গত তিনদিন আগে মেয়ের জ্বর আসে । এতে ক্রমেই তার অবস্থা খারাপ হয়ে ওঠে ।  অনেক জায়গায় দৌড়াদৌড়ি করেও কোনো সাহায্য পাইনি । সকলের কাছে হাত পেতেছি কেউই সামান্য সাহায্য করেনি , টাকাও জোগাড় হয়নি । সাতদিন ধরে মেয়েটাকে খেতে দিতে পারিনি। তারপরেই শুক্রবার সে ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে যায়। শেষ মেষ মারা যায় মেয়েটি । 

 

প্রতিবেশীরা বলেন , ” শিলা সাহায্যের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে একাধিকবার যোগাযোগ করেছে । কিন্তু কোনও সাহায্য পায়নি। শেষে মেয়ের মৃত্যুর পর শনিবার স্থানীয় প্রশাসন পরিবারটিকে সাহায্যের আশ্বাস দেয়।” প্রতিবেশীরা জানান , শিলার স্বামী টিবি রোগী । বেশ কয়েক বছর ধরে সেও শয্যাশায়ী ।