৭১ টি কারাগার থেকে ১১,০০০ বন্দিকে ৮ সপ্তাহের জন্য মুক্তির সিদ্ধান্ত যোগী সরকারের

0

সমাচার ডেস্কঃ- দিন দিন মহামারী আকার ধারণ করেছে চীনের প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। লকডাউনের মধ্যেই দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা । সচেতনতায় প্রতিনিয়ত প্রদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে । সচেতনতার পদক্ষেপ হিসেবে জেলে বন্দীদের নিয়ে বড়ো ঘোষনা করলেন উওর প্রদেশ মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্য নাথ । শনিবার একটি সরকারি বিবৃতিতে তিনি জানিয়েছেন, উত্তরপ্রদেশ সরকার ৭১ টি কারাগারে বন্দী ১১,০০০ বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ।

সুপ্রিম কোর্ট এই সপ্তাহের গোড়ার দিকে সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে প্যারোলে বা অন্তর্বর্তীকালীন জামিন বন্দীদের মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করার জন্য এবং উচ্চ-স্তরের কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছে । করোন ভাইরাস মহামারী উদ্যোগে শীর্ষ আদালত জানিয়েছেন, কারাগারে ভিড় করা গুরুতর উদ্বেগের বিষয়, বিশেষ করে বর্তমান প্রসঙ্গে (করোনাভাইরাস)। বিশেষ ৭১ টি কারাগারে বন্দী আন্ডারআউটালদের অপরাধে যার সর্বোচ্চ শাস্তি এক বছর, তাদের ব্যক্তিগত বন্ডে-সপ্তাহের অন্তর্বর্তী জামিন দেওয়া হবে, এবং সঙ্গে সঙ্গে জেল থেকে মুক্তি দেওয়া হবে।

দেশে ইতিমধ্যেই সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশে এখন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মোট ৯৫০ জন ছড়িয়েছে । যার জন্য জোরদার এই পদক্ষেপ । ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার সাধারণ মানুষের জন্য ১.৭ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প‍্যাকেজের ঘোষণা করেছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)-র ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস অ্যাডানম গ‍্যাব্রিসিয়াস জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে শুধু লকডাউন যথেষ্ট নয়, রোগিদের খুঁজে বের করা, আইসোলেশন করা, পরীক্ষা করা, চিকিৎসা করার বিষয়ে জোর দিতে হবে।তাই লকডাউনের পরে তন্নতন্ন করে খুঁজে বের করতে হবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কারা।

এখনো পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ১৩ হাজারের কাছাকাছি মানুষ। এখনো পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মারা গেছে ২৫ হাজারের বেশি । গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে।

এরপর থেকেই চীনের বিভিন্ন প্রান্তে করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ে। যদিও চীন সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে বেশ কিছু দিন ধরে করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলেনি । এমনকি একাধিক জরুরি অবস্থায় হাসপাতাল গুলো বন্ধ করা হয়েছে।