প্রকাশ্যে তৃনমূলের গোষ্ঠীকোন্দল, আমার রাজনৈতিক জীবন শেষ করতে চাইছে দলের নেতা : শিবদাশন দাশু

ডেস্ক রিপোটারঃ পশ্চিম বর্ধমানে প্রকাশ্যে এল তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল । সাংবাদিক বৈঠক করে পশ্চিম বর্ধমান জেলার তৃণমূলের চেয়ারম্যান ভি শিবদাশন দাশু অভিযোগ করলেন, “দলের নেতাই আমার রাজনৈতিক জীবন শেষ করতে চাইছে ।” লোকসভা ভোটে আসানসোল আসনে হারের পরই তৃণমূল নেতারা দোষ দিচ্ছিলেন একে অপরকে । কিন্তু এই প্রথম প্রকাশ্যে মুখ খুললেন কোনও তৃণমূল নেতা ।

শিদাশন দাশু বলেন, “যারা তৃণমূল কংগ্রেসে থেকে BJP-কে সাথ দিয়েছে, এই রকম নেতারা সামনে আসছে । এইরকম হলে পার্টির আরও খারাপ হবে । আমার কাছে বারবার ফোন আসছে । ফোনে বলছে, জামুড়িয়ায় আমার সভায় ঝামেলা হয়েছে । কার কথায় এরকম বলছে জানতে চাইলে বলেছে অমুক নেতা বলেছে । আমি বলেছি, জামুড়িয়ার মানুষকে এসে জিজ্ঞাসা করে যাও ঝামেলা হয়েছে কি না । আমার মনে হচ্ছে, আমার দলেরই কোনও নেতা মিডিয়ার সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমার ৩৪ বছরের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শেষ করতে চাইছে ।” নাম না করে জেলার এক শীর্ষ নেতাকে আক্রমণ শানিয়ে তিনি বলেন, “আমার কারও সার্টিফিকেট দরকার নেই । আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সার্টিফিকেটে তৃণমূল কংগ্রেস করতে এসেছি ।

এই ঘটনার পিছনে কার হাত আছে আমি ভালো করে জানি । এই যে মিডিয়াতে আমার বিরুদ্ধে লিখছেন, কে করছেন আমি জানি । আমি দলকে মজবুত করতে এসেছি । আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লোক । তৃণমূল কংগ্রেসকে মজবুত করাই আমার উদ্দেশ্য । আমার কাজ পার্টির প্রত্যেক কার্যকর্তাদের একসাথে নিয়ে চলার । আমি তাই চলি ।” লোকসভা ভোটের ফল ঘোষণার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিম বর্ধমানের তৃণমূল জেলা সভাপতির পদ থেকে ভি শিবদাশন দাশুকে সরিয়ে জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে নিয়ে আসেন । এর ফলে দাশুর অনুগামীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায় । যদিও ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে মমতা আবার দাশুকে জেলার চেয়ারম্যান পদে বসান ।

এরপর থেকেই দাশু শিবির এবং জিতেন্দ্র তিওয়ারি শিবিরে স্পষ্ট বিভাজন চোখে পড়ে ।এরই মাঝে গতকাল সাংবাদিক বৈঠক ডেকে রীতিমতো দলের নেতাদের নাম না করে আক্রমণ করলেন ভি শিবদাশন দাশু । দাশুর মতে, তাঁর রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শেষ করতে উঠে পড়ে লেগেছে দলের অন্য নেতারা । তবে কারও নাম নেননি তিনি ।