অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের ডিম ও চাল বিক্রির অভিযোগ দায়িত্বে থাকা কর্মীর বিরুদ্ধে

0

হক জাফর ইমাম, মালদা: অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের ডিম ও চাল বিক্রির অভিযোগ অঙ্গনওয়াড়ি দায়িত্বে থাকা কর্মীর বিরুদ্ধে। এই দিন গ্রামবাসীরা প্রায় ঘন্টা দুয়েক ঘেরাও করে রাখে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা কর্মীকে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা ইংরেজবাজার ব্লকের যদুপুর এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাধাপুকুর কমলাবাড়ী গ্রামের অঙ্গনওয়াড়ি(৪১২) কেন্দ্রে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ দিনের পর দিন অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের দিদিমণি রুম্পি গুপ্ত সাহা ঠিকমতো আসে না এবং নিয়মমাফিক মিড ডে মিলের খাওয়ারও বাচ্চা ও মা-দের দেওয়া হয় না। অন্যদিকে সেই সমস্ত বাচ্চাদের খাবার জমে থাকা ডিম ও চাল গ্রামের আশেপাশে কোন দোকান বা বাড়িতে বিক্রি করা হচ্ছে।

 

এদিনও দিদিমণি আসার পর বাচ্চাদের হাতে শুধুমাত্র কয়েকজনের হাতে সেদ্ধ দিম দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। ঘটনা জানার পর গ্রামবাসীরা সংবাদমাধ্যম দের খবর দিলে, দিদিমণি সংবাদমাধ্যম আসার কথা শুনে তড়িঘড়ি খিচুড়ি রান্না শুরু করে। তারপর বাচ্চাদের মধ্যে সেই খিচুরি বিলি করে। দিনের পর দিন বলেও কোনো সুরাহা না হওয়ায়, অবশেষে শুক্রবার সকালে তাকে ঘেরাও করতে বাধ্য হয়েছে গ্রামবাসীরা ।

 

গ্রামবাসীদের দাবি, এই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা কর্মীকে অন্যত্র সরানো হোক নইলে আগামীদিনে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেন গ্রামবাসীরা। এ বিষয়ে গ্রামবাসীরা লিখিতভাবে বিডিও কেও জানাবেন বলে তারা জানান।গ্রামবাসীদের মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে, আমরা দায়িত্বে থাকা কর্মীর কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি জানান, গ্রামবাসীদের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। কোন কারণে মাসে এক-দুই দিন হয়তো তিনি আসেন না। কিন্তু বিক্রির যেটা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন তিনি।