১৯৬২ সালের ভারত নয়,শক্তি শালী, আত্মনির্ভরশীল ভারত! মোদী জমানায় ড্রাগনের দেশ মানল হার!

0

সমাচার ডেস্ক: চীন ভারতের মধ্যে সম্পর্ক অনেকটা ঠান্ডা লড়াই এর দিকে চলে গিয়েছিল। বাণিজ্যিক যুদ্ধ চলছে এখন আমেরিকার সাথে চীনের। এরমধ্যে উহান প্রদেশ থেকে করোনাভাইরাস এর সৃষ্টি বলে গোটা বিশ্ব যখন চীনকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে তখন কিন্তু অনেকটা কোণঠাসা। এই মুহূর্তে ভারতের সীমান্তে উষ্ণতার পারদ যত বাড়বে তত কিন্তু আখেরে ক্ষতি হবে চীনের এমনটা বুঝতে পেরেছে কমিউনিস্ট চীন।

চীন ভারতে তাদের প্রোডাক্ট বিক্রি করে প্রচুর টাকা অর্জন করে। ভারতীয়রা আত্মনির্ভর হলে চীনের ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ হবে। অন্যদিকে করোনা ভাইরাস ও হংকং ইস্যুতেও চীন সরকার কোণঠাসা হয়ে রয়েছে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, চীন লাদাখ সীমান্তে প্রায় ৭০০০ সেনা মোতায়েন করেছে। তবে চীনের উপদ্রব শুরু হতেই ভারত সরকার ভারী সংখ্যায় সেনা জওয়ান ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে। এই মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী মোদী তিন বাহিনীকে নিয়ে জোরদার বৈঠক করেছেন। সেখানে যুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে কোনমতেই যে চীনকে এক ইঞ্চি জমিও ছেড়ে দেয়া হবে না তা বুঝে গেছে ড্রাগনের দেশ। তাই এবার আগে থাকতেই ঢোক গিলে নিতে হলো চীনকে। এমনটাই মনে করছে রাষ্ট্র বিশেষজ্ঞরা।