নিয়মিত ছাগলের দুধ খাওয়ার উপকারিতা জেনে নিন

0

ছাগলের দুধে এলার্জি নিয়ন্ত্রণ করে সাধারণ ।গরুর দুধ বাচ্চাদের সবচাইতে বেশি এলার্জি সৃষ্টি করে কিন্তু গরুর দুধে এমন কী আছে যে এটি এতোটা এলার্জিপূর্ণ হবে? এর উত্তর লুকিয়ে আছে গরুর দুধের প্রোটিনে। এ প্রোটিনে লুকায়িত রয়েছে এলার্জি উপাদান। ছাগলের দুধে এ অনুটির পরিমাণ গরুর দুধের তুলনায় শতকরা ৮৯ ভাগ কম। গরুর দুধের প্রতি শিশুদের এলার্জি নিয়ে পরিচালিত সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, শতকরা ৯৩ ভাগ শিশু ছাগলের দুধ খেতে পারে কোনরকম এলার্জি প্রতিক্রিয়া ছাড়াই।

ছাগলের দুধ হজম করতে সাহায্য করে খাদ্য গ্রহণের পর যে জিনিসটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তা হলো আমাদের দেহ যাতে এ খাদ্য সবচেয়ে দ্রুততার সঙ্গে হজম করতে পারে সে বিষয়টি খেয়াল রাখা। ছাগলের দুধের চর্বির দানা গরুর দুধের তুলনায় প্রায় অর্ধেক এবং এতে আছে উচুমাত্রার মিডিয়াম শৃঙ্খল ফ্যাটি এসিড। এ ধরনের ফ্যাটি এসিড আপনার জন্য ভালো। উপরন্তু, এটি হজম করাও সহজ।

 ছাগলের দুধ প্রকৃতিগতভাবে সমজাতীয় একটি পিনের মাথার সমপরিমাণে ছিদ্র দিয়ে গরুর দুধ প্রবাহিত করা হয় উচ্চ চাপে। এতে দুধের ফ্যাটের কোষীয় দেয়াল ধ্বংস হয়ে যায়। ফলে এ দেয়াল থেকে মারাত্মক ফ্রি-র্যাডিক্যাল নির্গত হতে থাকে। ছাগলের দুধ যেহেতু প্রকৃতিগতভাবেই সমজাতীয় করা, অতএব এর জন্য এসব কঠোর প্রক্রিয়াজাতকরণের প্রয়োজন নেই। এ জন্য এ দুধের হজম ঘটে সহজে।

 আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় খুব জনপ্রিয় ছাগলের দুধ।ডেঙ্গুজ্বর আক্রান্তরা সহজেই এটি হজম করতে পারে। এ ছাড়া ছাগলের দুধ ডেঙ্গু প্রতিরোধেও কাজ করে।ডেঙ্গুর সংক্রমণের হাত থেকেও রক্ষায় ছাগলের দুধের উপকারিতা অপরিসীম।

সূত্র: অনলাইন