মোবাইলেই কেটে যেত ঘন্টার পর ঘন্টা,আসক্তি কাটিয়ে উচ্চমাধ্যমিকে ৪৯৯ পেয়ে শীর্ষে কলকাতার স্রোতশ্রী

0

সমাচার ডেস্ক: আর পাঁচজনের মতো তারও ছিল অতিরিক্ত মোবাইলের প্রতি আসক্তি। একটা সময় ছিল যখন 12 ঘণ্টার বেশি সময় সে মোবাইল ব্যবহার করেই কাটাতো। এর ফল তার পড়াশোনাতেও পড়েছিল।মোবাইলের এই অতিরিক্ত আসক্তির কারণেই টেস্টে তার রেজাল্ট খারাপ হয়।

টেস্টে এই রেজাল্ট খারাপ হওয়াটাই তাকে জীবনে ঘুরতে সাহায্য করেছিল। সব সময় খারাপ-প্রকৃতপক্ষে খারাপ হয় না। কখনো কখনো জীবনের খারাপ থেকেই আমরা শিক্ষা নিয়ে ঘুরে দাঁড়ায়। ঠিক যেমন কলকাতার মেয়ে স্রোতশ্রী৷

রেজাল্ট খারাপ হওয়ার পর সে বুঝতে পারে যে তাকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। আর সে ঘুরে দাঁড়াবার চেষ্টা করে। মোবাইল দূরে সরিয়ে রেখে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করে। এরপর উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্ট সেই ফলাফল পেয়ে গেল হাতেনাতে। পরিশ্রম করলে তার ফল সবসময় উত্তম ই হয়।

উচ্চমাধ্যমিকে শাখাওয়াত মেমোরিয়াল স্কুল এর ছাত্রী স্রোতশ্রী সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছে। এইবার উচ্চ মাধ্যমিকে ৪৯৯ নম্বর পেয়ে শীর্ষে চারজন কৃতী হয়েছেন।এই চারজনের মধ্যেই একজন হলো কলকাতার মেয়ে স্রোতশ্রী ৷ স্রোতশ্রী ভবিষ্যতে কম্পিউটার ‌ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়৷

ইংরেজি বাদে অন্য সকল বিষয়ে ১০০ তে ১০০ পেয়েছে স্রোতশ্রী। করোনার কারণে তিনটি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে পারেনি স্রোতশ্রী। অঙ্ক তার প্রিয় বিষয় হ‌ওয়ায় অঙ্কে সে ১০০ তে ১০০ পেয়েছে। মূল্যায়নের নিয়ম অনুযায়ী এইবার বাকি তিনটি বিষয়েঝ অর্থাৎ ফিজিক্স, কেমেস্ট্রি ও স্ট্যাটিসটিক্সে ১০০ তে ১০০ পেয়েছে সে।চিরকাল ই স্রোতশ্রী মেধাবী ছাত্রী ছিলো। তার এই রেজাল্ট আবার ও‌ তার মেধাকে ই প্রমান করলো।