জয়পুর কে বলা হয় গোলাপি শহর। কিন্তু এবার কলকাতা যেন হয়ে উঠছে গোলাপি শহর। কারণটা কোন ঐতিহাসিক বৈজ্ঞানিক নয়। কারণ টা পুরো খেলার জগতের সাথে যুক্ত। হ গোলাপি বলের খেলা। সাক্ষী হতে চলেছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের জনতার মধ্য ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে উৎসাহ তুঙ্গে।

এখনও পর্যন্ত যা ঠিক হয়েছে, এক সঙ্গে ইডেন বেল বাজিয়ে টেস্টের সূচনা করবেন হাসিনা এবং মমতা। কিছুক্ষণ খেলা দেখে হোটেলে ফিরে যাবেন হাসিনা। আবার বিকেলে এসে কিছুক্ষণ ইডেনে থেকে সেখান থেকেই ফিরে যাবেন বিমানবন্দরে।

হাসিনার নিরাপত্তা ব্যবস্থা কেমন হবে, তা দেখতে ইডেনে আসছে বাংলাদেশের বিশেষ প্রতিনিধি দল। যাঁরা প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তা টিম। ইডেন ঘুরে, সিএবি কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন তাঁরা। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ থাকছেন। থাকবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইডেন জুড়ে এখন সাজো সাজো রব।

খেলার ফলাফল যাই হোক না কেন এই ঐতিহাসিক দিন রাত একটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ক্রিকেট ইতিহাসে ভারতের বুকে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ কেন যেকোনো ক্রিকেটপ্রেমীরা বুঝতে পেরেছে।