ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের সহজ জয়

বিশ্বকাপের ১৯তম ম্যাচে স্বাগতিক দল ইংল্যান্ডের জফরা আর্চার ও মার্ক উডের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর জো রুটের শতক ইংলিশদের এনে দিয়েছে ৮ উইকেটের সহজ জয়। ক্যারিবিয়দের দেয়া সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সহজেই ৩৩.১ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২১৩ রানের লক্ষ্যে পৌঁছে ইংলিশরা ঘরে তুলে নেয় টুর্নামেন্টে তৃতীয় জয়।

আজ সাউদাম্পটনে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংল্যান্ডের ওপেনিং জুটি দারুণভাবে রানের খাতা খোলে। জনি বেয়ারস্টো ও জো রুট জুটি অল্পের জন্য তিন অঙ্কের রানের দেখা পায়নি, দলীয় ৯৫ রানে বিদায় নেয় বেয়ারস্টো। তবে ৪৫ রান করা বেয়ারস্টো বিদায় নিলেও নতুন ব্যাটসম্যান ক্রিস ওকসকে নিয়ে দেখেশুনে খেলতে থাকেন রুট। চোটের কারণে এদিন ব্যাট হাতে ওয়ান ডাউনে নামেননি জেসন রয়, নামেননি দ্বিতীয় উইকেটের পতনের পরও।

জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে ওকসকে বিদায় নিতে হয় ৪০ রান করে।তবে ক্যারিয়ারের ১৬তম শতক তুলে নিতে ভুল করেননি রুট। ৯৩ বলেই তিনি রান সংখ্যাকে পৌঁছে দেন তিন অঙ্কে। শেষপর্যন্ত ৯৪ বলের মোকাবেলায় ঠিক ১০০ রান করেই অপরাজিত থাকেন। ৩৩তম ওভারের প্রথম বলে চার হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন বেন স্টোকস (১০)। ক্যারিবীয়দের পক্ষে দুটি উইকেটই শিকার করেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

এর আগে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টস হেরে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৪৩.৪ ওভারে ২১১ রান সংগ্রহ করে উইন্ডিজ। সাউদাম্পটনে খেলা শুরুর তৃতীয় ওভারে দলীয় ৪ রানেই এভিন লুইসকে বোল্ড করে ক্রিস ওকসকে গ্যালারিতে ফেরান। এই পেসারের বলে ব্যক্তিগত ১৬ রানে সহজ ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যান ক্রিস গেইল। এই দানবের ব্যাট ছুঁয়ে বল মার্ক উডের তালুবন্দি হলেও ব্যালান্স হারিয়ে সেটা ফেলে দেন তিনি।

পরে দলের ৫৪ রানে ক্রিস গেইল ও ১৩ ওভারের দ্বিতীয় বলে শাই হোপের আউট চাপে ফেলে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এরপর রুটের বোলিং তোপে ম্যাচের ২৯ ওভার ৫ বলে ক্যারিবিয়দের চতুর্থ ও ৩১ ওভার ৬ বলে পঞ্চম উইকেট গ্যালারিতে ফেরে। এরপর একে একে সবগুলো উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ম্যাচে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৬৩ রান করে নিকোলাস পুরান। তবে ওশানে থমাস, শেলডন কটরেল এবং শ্যানন গ্যাব্রিয়েল কোনো রানই করতে পারেননি। খেলায় শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে ০ রানে বোল্ড করে ক্যারিবিয়দের থামিয়ে দেয়া মার্ক উড পেয়েছেন সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট।

এদিকে, আজকের ম্যাচে মুখোমুখি ‘ধারাবাহিক’ ইংল্যান্ড ও ‘পাওয়ার হিটিং’ ওয়েস্ট ইন্ডিজ উভয়ই দলই খেলছে তাদের চার নম্বর ম্যাচ। আগের তিন ম্যাচে ইংল্যান্ডের জয় দুটি এবং হার একটি। ক্যারিবীয়রা একটি জিতলেও হেরেছে একটি। অপরটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে।

এতে, এই আসরে এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচে দুই জয়ে ইংল্যান্ডের অবস্থান চতুর্থতে। অন্যদিকে তিন ম্যাচে এক জয় এক পরাজয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অবস্থান ষষ্ঠে। দ্বাদশ বিশ্বকাপে আসরে এটাই দু’ দলের প্রথম সাক্ষাৎ হলেও এ নিয়ে ১০১টি আর্ন্তজাতিক ওয়ানডে ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে তারা। যার ৫১টিতে জিতেছে ইংল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪৪ ম্যাচে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ :

ক্রিস গেইল, এভিন লুইস, শাই হোপ (উইকেটরক্ষ), নিকোলাস পুরান, শিমরন হেটমায়ার, জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), আন্দ্রে রাসেল, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, শেল্ডন কটরেল, ওশানে থমাস।

ইংল্যান্ড একাদশ :

জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট, ইয়ন মরগ্যান (অধিনায়ক), বেন স্টোকস, জস বাটলার (উইকেটরক্ষক), ক্রিস ওকস, আদিল রশীদ, জোফরা আর্চার, লিয়াম প্লানকেট, মার্ক উড।