“প্রিয় প্রধানমন্ত্রী, এই মুহূর্তের দরকার হল যে “রাহুল জি মস্তিষ্কপ্রসূত প্রকল্প রূপায়ণ করা! টুইট কংগ্রেসের

0

সমাচার ডেস্কঃ- করোনার থাবায় গোটা বিশ্ব এখন ধুঁকছে । প্রধানমন্ত্রী মোদী তার সমস্ত পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করবার পথে সকলের সাহায্য প্রার্থনা করেছেন। কিন্তু লাগাতার কংগ্রেস এর থেকে যেভাবে আক্রমণ শানানো হচ্ছে তা নিয়ে অনেকটাই বিপাকে কেন্দ্রীয় বিজেপি প্রতিনিধিরা। তারা উত্তর দিচ্ছেন তবে এদিন টুইট কিন্তু যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

রণদীপ সুরজেওয়ালা দুটি টুইটবার্তায় বলেন, ‘প্রিয় প্রধানমন্ত্রী, এই মুহূর্তের দরকার হল যে রাহুল জি ও কংগ্রেসের মস্তিষ্কপ্রসূত ন্যায় রূপায়ণ করা। দয়া করে জনধন অ্যাকাউন্ট ও পিএম কিষাণ অ্যাকাউন্ট গ্রাহকদের মাসিক ৭,৫০০ টাকা দিন। পুষ্টিগত চাহিদার প্রতিটি পেনশন অ্যাকাউন্টের ২১ দিন প্রয়োজন এবং বিনামূল্যে রেশন দিন।’

অন্যদিকে আবার আরেক টুইটে আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণার কথা ও ঘোষণা আর্জি জানানো হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে এই মুহূর্তে দেশের আর্থিক পরিস্থিতি চাকা অনেকটাই প্রায় ঢুকে গিয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের দল কিন্তু অস্থিরতার মধ্যে রয়েছে। ধীরে ধীরে বাড়ছে বেকারত্বের সংখ্যা। এখান থেকে মুক্তির উপায় নিয়ে আরও গভীর চিন্তা-ভাবনা করা।

কংগ্রেসের টুইটার অ্যাকাউন্টে বলা হয়, ‘যখন কেন্দ্র একটি আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণার বিষয়ে অপেক্ষা করছেন, বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে গত বছর কংগ্রেসের প্রস্তাবিত ন্যায় প্রকল্পের হয়ে কথা বলছেন। এই সংকটের মুহূর্তে গরীবদের ন্যূনতম আয় নিশ্চিত করবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য রাহুল গান্ধীর একটি কথা যা প্রায় ভোটের বাজারে হিল্লোল তুলে দিয়েছিল
গত বছর ২৫ মার্চ তৎকালীন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী জানিয়েছিলেন, কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় এলে দেশের ২০ শতাংশ গরীব পরিবারপিছু বছরে ৭২,০০০ টাকা দেওয়া হবে। কংগ্রেসের দাবি ছিল, দেশের পাঁচ কোটি ও প্রায় ২৫ কোটি মানুষ এই প্রকল্পের সুবিধা পাবে। প্রতিটি পরিবারকে মাসিক ৬,০০০ টাকা দিলে প্রকল্পের জন্য খরচ হবে ৩.৫ লাখ কোটি।