কোয়ারান্টিন সেন্টার নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে বাংলায়, অভিযোগ অধীরের

0

রাজীব ঘোষঃ-কোয়ারান্টাইন সেন্টার তৈরি নিয়ে বাংলায় নতুন দুর্নীতি হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন ইনস্টিটিউশনাল কোয়ারান্টিন সেন্টার তৈরি করা হবে। তার অর্থ সরকারি কোয়ারান্টাইন সেন্টার হবে। কিন্তু সেটা করা হয়নি। রাজ্যে কোয়ারান্টিন সেন্টার তৈরি করার জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা, ঠিকাদারদের টাকা পয়সা দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেন্টার তৈরি করার দায়িত্ব দিয়েছেন। এমন ভাবে সেই সেন্টার গুলো তৈরি হয়েছে, কারো যদি করোনা না থাকে ওই সেন্টারে থাকলেই তার করোনা হয়ে যাবে। এই অভিযোগ করলেন সাংসদ এবং লোকসভার কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী। তিনি আরো বলেন, নামে কিছু কোয়ারান্টিন সেন্টার তৈরি করেছে সরকার। সেখানে যারা রয়েছে তাদের এলাকার মানুষজন খাওয়াচ্ছে, দেখভাল করছে।

রাজ্য সরকার কোন দায়িত্ব পালন করছে না। কিছুই করা হচ্ছে না। তবে টেন্ডার হয়ে গেছে, বাশ পড়ে গেছে, ত্রিপল কেনা হয়ে গেছে, মাল ঢুকে গিয়েছে। এর আগে রাজ্যে রেশন দুর্নীতি নিয়ে অভিযোগ করেছিলেন অধীর চৌধুরী। এবার তিনি রাজ্যে কোয়ারান্টিন সেন্টার তৈরি করা নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে অধীর চৌধুরী বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন ট্রেন ছাড়াও অন্যান্য গাড়িতে করে প্রচুর পরিযায়ী শ্রমিক রাজ্যে এসেছেন।

তাহলে কি সেই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের উপর নজর রাখা সম্ভব হল? ট্রেনে আসলে তাদের দিকে নজর রাখা যেত। এর পরেই অধীর চৌধুরী প্রশ্ন করেন, মুখ্যমন্ত্রী বলছেন কোটি কোটি পরিযায়ী শ্রমিক রাজ্যে এসেছে। তাহলে কী রাজ্য থেকে প্রচুর পরিমাণে মানুষ বাইরের রাজ্যে কাজের জন্য গিয়েছিল। আপনার আমলে রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকের সংখ্যা বেড়েছে ।এটা স্পষ্ট করে বলুন। লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী কোয়ারান্টিন সেন্টার করা নিয়ে দলকে দুর্নীতি করার সুযোগ করে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এই অভিযোগ করলেন।