ডেস্ক রিপোটারঃ জয়াপ্রদাকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যে কটাক্ষ করে “খাকি অন্তর্বাস” বলেন সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী আজম খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এই মন্তব্যের জন্য আজ়ম খানের কাছ থেকে উপযুক্ত ব্যাখ্যাও চাওয়া হয়েছে জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফে।

গতকালের সভায় আজ়ম খান বলেন, “মানুষটা ১০ বছর ধরে রামপুরের লোকজনের রক্ত চুষেছে। আমি তাঁর হাত ধরে তাঁকে রামপুরে এনেছিলাম। রামপুরের পথঘাটের সঙ্গে তাঁকে পরিচয় করাই। কাউকে স্পর্শ করতে দিইনি তাঁকে। কাউকে একটা কুমন্তব্য করতে দিইনি। আপনারা তাঁকে ১০ বছরের জন্য প্রতিনিধি বানালেন। তাঁর আসল রূপ চিনতে আপনাদের ১৭ বছর লেগে গেল। আমি তো ১৭ দিনেই বুঝতে পেরেছি তাঁর অন্তর্বাস খাকি রঙের (খাকি রঙটি RSS-র সঙ্গে সম্পর্কিত)। এরপরই জয়প্রদার প্রতি এই মন্তব্যের জন্য আজম খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়।

এই বিষয়ে আজ়ম খান বলেন, “আমি জয়াপ্রদা সম্পর্কে এইরকম কোনও মন্তব্য করিনি। কখনও জয়াপ্রদার নাম নিইনি। যদি আমার অপরাধ প্রমাণ হয় তাহলে আমি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব না। আমি কাউকে অপমান করিনি। আমি জানি আমার কী বলা উচিত। আমি রামপুর থেকে ন’বারের বিধায়ক এবং মন্ত্রীও ছিলাম। আমি জানি কী বলতে হয়।”কয়েকদিন আগে জয়াপ্রদা জানিয়েছিলেন, তাঁর অশ্লীল ছবি ভাইরাল হওয়ার পর তিনি রামপুর থেকে চলে আসেন। পরে তাঁর ওপর অ্যাসিড হামলার চেষ্টা করা হয়।

তিনি বলেন, “আজ়ম খানকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অনুমতি দেওয়াই উচিত নয়। কারণ যদি ওই মানুষটা জেতে তাহলে গণতন্ত্রের সঙ্গে কী হবে? আমার কি মরে যাওয়া উচিত? তারপর আপনি (আজ়ম খান) স্বস্তি পাবেন? আপনি ভাবছেন আমি ভয় পেয়ে রামপুর ছেড়ে চলে যাব? আমি যাব না।”এই ঘটনায় BJP নেত্রী সুষমা স্বরাজ টুইট বার্তায় লেখেন, “সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মুলায়ম সিং যাদব নীরব থাকার ভুল করবেন না। মহাভারতে দুর্যোধন যখন দ্রৌপদির বস্ত্রহরণ করছিল তখন পিতামহ ভীষ্ম নীরব হয়ে বসেছিলেন। মুলায়ম সিং আপনি সেই ভুল করবেন না।”