ডেস্ক রিপোর্টারঃ মূর্তি কাণ্ডের ঘটনার আঁচ গিয়ে পড়ল বলি পাড়াতেও। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন পরিচালক মহেশ ভাট। একটি টুইট করে মহেশ ভাট বলেন, “পণ্ডিত বিদ্যাসাগরের উপর আক্রমণ বাংলা ভাষার উপর আক্রমণ। বর্ণ পরিচয়ের মাধ্যমে পড়াশোনার জন্য বাংলা ভাষাকে সহজ করেছেন তিনি”। গতকালের ওই ঘটনায় নিন্দা করেছেন অনেকেই। সোশাল মিডিয়া জুড়ে চলছে প্রতিবাদ।




ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর রোড শোকে কেন্দ্র করে। রোড শোকে কেন্দ্র করে টিএমসিপি বনাম বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় কলকাতা৷ সংঘর্ষে বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের একটি মূর্তি ভেঙে ফেলার অভিযোগ ওঠে৷ বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় একে অপরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে বিজেপি ও তৃনমূল।

 


তৃণমূলের দাবি, বিজেপি সমর্থকরাই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে। কলেজে যাবতীয় অশান্তি ছড়ানো, বাইকে আগুন ধরানো, ভাঙচুর, যাবতীয় কাণ্ড ঘটিয়েছে বিজেপি। অন্যদিকে বিজেপির দাবি, এসবই তৃণমূলের কাজ। ভোটে হার নিশ্চিত যেনে শেষ দফার আগে মানুষের সহানুভূতি কুড়োতে নিজেরাই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে। এখন বিজেপিকে বদনাম করার চক্রান্ত চলছে। নিজেদের ওই দাবির সমর্থনে ভিডিও পোস্ট করেছে গেরুয়া শিবির। পাল্টা ভিডিও দেখিয়েছে তৃনমূলও। অন্যদিকে কমিশনের তরফে রিপোর্টও তলব করা হয়েছে।