বাংলায় প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি হলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী

0

সমাচার ডেস্ক: ২০২১সে হবে বিধানসভা নির্বাচন।তার আগ দলের লোকসভার নেতা অধীর চৌধুরীকেই ফের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদে নিয়োগ করলেন সনিয়া গান্ধী।২০১৮ সালে সৌমিন মিত্র কংগ্রেস এর সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে নিজে সেই আসন দখল করেন।সৌমীন মিত্রের মৃত্যুর একমাস পর পুনরায় অধীর চৌধুরীকে কংগ্রেস এর সভাপতির আসনে বসেন সনিয়া গান্ধী।

বর্তমান সময় মোটেও ভালো যাচ্ছেনা কংগ্রেসের ,গত লোকসভা নির্বাচনে দেশজুড়ে শোচনীয় ফলাফল ও একাধিক নেতৃত্বের বিদ্রোহ, এই সব কারণে তাদের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত ।এদিকে, বছর ঘুরলে রাজ্যে বিধানসভা ভোট। সেইসঙ্গে করোনার কারণে থমকে আছে একাধিক পুরসভার নির্বাচন। এই পরিস্থিতিতে সোমেন মিত্রর উত্তরসূরির নির্বাচনে হাইকমান্ড কেন এত সময় নিচ্ছে তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল কংগ্রেসের অন্দরে। শেষ পর্যন্ত বুধবার রাত এগারোটা নাগাদ এআইসিসির তরফে জারি করা এক বিবৃতিতে পশ্চিমবঙ্গে পরবর্তী প্রদেশ সভাপতি হিসেবে অধীরের নাম ঘোষণা করা হয়।

কংগ্রেসের উচ্চপদে থাকা বিশেষজ্ঞদের মতে , বাংলায় এই মুহূর্তে কংগ্রেসের সব থেকে দাপুটে মুখ বহরমপুরের এই সাংসদ। লোকসভা নির্বাচনে দেশজুড়ে কংগ্রেসের ভরাডুবি বাজারেও নিজের গড় ধরে রাখতে সফল তিনি। যার ফলস্বরূপ জাতীয় রাজনীতিতে ক্রমশ তাঁর প্রভাব বাড়ছে।

কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা পদে এই বাঙালি রাজনীতিককে বেছে নিয়েছেন সনিয়া গান্ধী।পাশাপাশি সংসদের পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির প্রধানের পদেও তাঁর উপরেই ভরসা রাখে গান্ধী পরিবার।সোমেন মিত্রর প্রয়াণের ফলে যখন নতুন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির খোঁজ শুরু হল তখন যে গুটি কয়েক নাম ঘিরে বঙ্গ রাজনীতির অলিন্দে জল্পনা চলছিল তার মধ্যে প্রথমেই ছিল অধীর চৌধুরীর নাম।

এমনকী ক’দিন আগেই কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীকে লেখা চিঠিতে অধীরকেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি করার সুপারিশ করে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। ওই পদে অধীর যোগ্যতম বলে ওই চিঠিতে উল্লেখ করেন তিনি।২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে বামেদের সঙ্গে নির্বাচনী সমঝোতা করে কংগ্রেসের আসন অনেক বাড়িয়ে নিয়েছিলেন অধীর।বিধাবসভা ভোটের আগে কংগ্রেস এর হারিয়ে ফেলা জাইগা ফিরিয়ে আনতে পারে কিনা সেটাই দেখার।